রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:০৭ অপরাহ্ন

মাত্র চার হাজার টাকায় দার্জিলিংয়ের কালিম্পং-লাভা!

মাত্র চার হাজার টাকায় দার্জিলিংয়ের কালিম্পং-লাভা!

ফিচার ডেস্ক : ঢাকা থেকে কক্সবাজার বেড়াতে গেলেও চার হাজার টাকা খরচ হয়। কিন্তু সেখানে দার্জিলিং কিভাবে সম্ভব? সে প্রশ্নেরই উত্তর থাকছে এই আয়োজনে। তবে তার আগে দার্জিলিং ঘুরে দেখার ‘প্রয়োজনীয়তা’ নিয়ে আলোচনা করাই যায়। অনেকেই মনের অন্তহীন গভীরতা থেকে ছুটি নিয়ে উড়ে চলে যেতে চায়। অসীম আকাশপানে চিৎকার করে বলতে চায় আমি উন্মুক্ত, আমি স্বাধীন। মেঘ পাড়ি দিয়ে কিছু সময় আকাশও ছুঁতে চায়! আফসোস! মানুষও তো উড়তেও জানে না। তবে এই অভিলাষী মনের সব ইচ্ছে পূরণ করে থাকে পাহাড়ের রাজ্য দার্জিলিং। জায়গাটির প্রতিটি বাঁক যেন অষ্টাদশী তরুণীর নির্লিপ্ত চাহনি, শুধু তাকিয়ে থাকতে ইচ্ছে হবে আর তাকিয়ে ডুবে যেতে মন চাইবে। পাহাড়ের কথোপকথনের শব্দরাশি আর শত-সহস্র অভিমানী পাহাড়ি মুখশ্রীর আলিঙ্গন পাবেন দার্জিলিং জুড়ে। নিজেকে উজাড় করে রাখা এক জায়গাও বটে এটি!

‘স্বর্গীয়’ জায়গাটিতে যেতে চাইলে ঢাকা থেকে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করুন রাত ১০টায়, ভাড়া নেবে ৬৫০ টাকা। পঞ্চগড় থেকে দেড় ঘণ্টার ৭০ টাকার বিনিময়ে বাংলাবান্ধা। এবার ফুলবাড়িয়া বর্ডারে গিয়ে ইমিগ্রেশনের সব ফর্মালিটি শেষ করে নিন। সেখান থেকে হেঁটেই শিলিগুড়ির মূল শহরের রাস্তায় চলে যান। এরপর ২২ টাকা দিয়ে শিলিগুড়ি যাবেন পানির ট্যাংকি জিপ স্ট্যান্ডে। ১৫/২০ মিনিটে পৌঁছে যাবেন যেখান থেকে সরাসরি কালিম্পং ও লাভার শেয়ার জিপ পাওয়া যায়।

কালিম্পং জিপ আর লাভার জিপ আছে তবে সেটা দুপুর ২টার পরে। লাভা যেতে সময় লাগবে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা। আর সেই জিপও কালিম্পং হয়েই যাবে। তাই আর দেরি না করে কালিম্পং যাওয়ার জিপের টিকেট নিতে পারেন আপনি। সঙ্গে নিতে পারেন পথের জন্য ২০০ টাকার শুকনো খাবার। পথে যদি ভালো জায়গা না থাকে তবে যেন লাঞ্চটাও সেরে ফেলা যায়, এমন কিছু খাবারসহ।

 

দার্জিলিং

 

কালিম্পং পৌঁছাতে সময় লাগবে আড়াই ঘণ্টা। সেখানে গিয়ে দেখতে পাবেন লাভার দিকে ছেড়ে যাচ্ছে জিপ। উঠে পড়ুন লাভা অভিমুখের জিপে। আঁকাবাঁকা পাহাড়ি আর ঢেউ খেলানো পথে দুলতে-দুলতে দেড় ঘণ্টায় পৌঁছে যাবেন লাভায়। ভাড়া নেবে ৭৮ টাকা মাত্র। খুঁজে-খুঁজে একটি লজে থাকার ব্যবস্থা করতে পারেন, ভাড়া অফ সিজন বলে মাত্র ৪০০ টাকা রুমপ্রতি হতে পারে। যদিও ৫০০ টাকা, কিন্তু দরদাম করে এটাতেই রফা করতে পারেন। এরপর গরম কাপড় পরে বাইরে বের হতে পারেন, বৃষ্টি আর পাহাড় দেখতে। বৃষ্টির মাঝেই ঘুরে দেখতে পারেন খুঁটিনাটি।

সেদিন বিকেল-সন্ধ্যা ও তারপরদিন পুরোটা সময় এদিক-ওদিক ঘুরে কাটিয়ে দিন। এটা সেটা খেয়ে আরো ৫০ টাকা খরচ হতে পারে আপনার। সঙ্গে কফির জন্যও ২০ টাকা। পরের দিন আবার ফেরার পালা। সেই একই ভাবে, তবে এবার ৮৫ টাকা লাগতে পারে আপনার, লাভা থেকে কালিম্পং যেতে। তবে কালিম্পং এসে লাভা থেকে ফেরার সেই অতিরিক্ত জিপ ভাড়ার টাকা পুষিয়ে নিতে পারেন আপনি। কালিম্পং থেকে ১৪৫ টাকার জিপে না ফিরে, পাবলিক বাসে ১২০ টাকা ভাড়া দিয়ে যেতে পারেন।

শিলিগুড়ি ফিরে ৫০ টাকার চাওমিন, ২৫ টাকার রসগোল্লা, ১৫ টাকার লিমকা খেয়ে আর ২০ টাকার আইসক্রিম নিয়ে উঠে পড়তে পারেন ফুলবাড়ির অটোতে। ভাড়া ১৮ টাকা। তারপর ফুলবাড়ি সীমান্তে অভাবনীয় আতিথেয়তা। ৭০ টাকায় পঞ্চগড় আর ৬০০ টাকায় নাবিল পরিবহনে ঢাকা। এই হল আমার দার্জিলিং জেলার অন্যতম আকর্ষণীয় দুই জায়গা রিশপ-লাভা ভ্রমণের খরচের হিসেব।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 BanglarKagoj.Net
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!