রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৫২ অপরাহ্ন

বান্দরবানে দূর্যোগে ভোগান্তি বাড়িয়েছে গ্রামীণ ফোন

বান্দরবানে দূর্যোগে ভোগান্তি বাড়িয়েছে গ্রামীণ ফোন

বান্দরবান : বান্দরবানে টানা ১০ দিনের ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যা ও দূর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে ভোগান্তিতে পড়েছে গ্রামীণ ফোনের গ্রাহকরা। টানা ৩ দিন ধরে নেটওয়ার্ক না থাকায় সীমাহীন দূর্ভোগে পড়েছে বন্যা কবলিত এলাকার লোকজন। নেটওয়ার্ক না থাকায় আপনজনের সাথে যোগাযোগ করতে পারেনি কেউ। এমনকি সরকারী অনেক প্রতিষ্ঠানের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের নাম্বার গ্রামীণ ফোনের হওয়ায় দূর্যোগের সময় তাদের সাথেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। দূর্যোগপূর্ণ পরিস্থতিতে মানুষ কষ্ট করে মোবাইল ফোন চার্জ দিয়ে রাখলেও নেটওয়ার্ক না থাকায় কারো সাথে যোগাযোগ করতে পারেনি। অনেকে বাধ্য হয়ে অন্য অপারেটরের সীম ব্যবহার করেছেন। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা পড়েছেন চরম বিপাকে। দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া থাকায় অনেকে বেশি করে এমবি রিচার্জ করে রাখলেও মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় নেট ওয়ার্ক না থাকায় তা ব্যবহার করতে পারেনি।
জানা গেছে, বান্দরবান জেলায় ১০ হাজার গ্রামীণ ফোনের গ্রাহক রয়েছে। তবে এমন দূর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে গ্রামীণ ফোনের নেট না থাকায় ক্ষোভ জানিয়েছেন গ্রাহকরা।
সাংবাদিক ওমর ফারুক বলেন, গ্রামীন দেশের এক নাম্বার নেটওয়ার্ক দাবী করলেও এমন একটি দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় ৩ দিন ধরে নেট বন্ধ রেখে গ্রাহকদের কষ্ট দেয়াটা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না। আমার অন্য সীম ছিল বলে আমি কোন রকম রক্ষা পেয়েছি। কিন্তু যাদের শুধুমাত্র একটি সীম তারা তিন দিন ধরে নেটওয়ার্কের বাইরে। তাদের সাথে কোন রকম যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এছাড়াও পাহাড়ি অনেক জায়গা আছে যেখানে শুধু গ্রামীণ ফোনের নেটওয়ার্ক রয়েছে। সেখানকার মানুষজন একেবারে অসহায় হয়ে পড়েছে। এমন দূর্যোগে মানুষজন পানিবন্দি হয়ে ঘর থেকেও বের হতে পারছে না। মোবাইলের যোগাযোগটাই একমাত্র মাধ্যম ছিল। তাই গ্রামীণের নেট না থাকায় মানুষের ভোগান্তি আরো বেড়েছে।
ডাক্তার রনি কর্মকার বলেন, মানুষ গ্রামীণের উপর থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। এমন একটি দূর্যোগের সময় মোবাইল নেটটা খুবই জরুরী। অন্যান্য কোম্পানীর নেট চালু থাকলেও গ্রামীণ ফোনের মত নাম করা একটি কোম্পানীর নেট দূর্যোগের সময় না থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছি আমরা। এমন অনেক মানুষ রয়েছে, যারা শুধুমাত্র গ্রামীণের সীম ব্যবহার করে। নেট না থাকায় তিন দিন ধরে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারিনি। আপনজনের খবরাখবর নিতে পারিনি। একদিকে প্রাকৃতিক দূর্যোগ, অন্যদিকে নেট না থাকায় সীমাহীন দূর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

বান্দরবান গ্রামীণ ফোন কাস্টমার সেন্টারের ম্যানেজার আজাহারুল ইসলাম বাবুল বলেন, আমাদের টিএন্ডটি পাড়া এলাকায় রাউটারে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় গত রবিবার থেকে বান্দরবানে গ্রামীণ ফোনের নেটওয়ার্ক বন্ধ হয়ে যায়। সড়ক ডুবে যাওয়ায় জেনারেটর নিয়ে আসা সম্ভব হয়নি। দূর্যোগ মুহুর্তে আমাদের আইপিএস এর বেকআপও শেষ হয়ে গিয়েছিল। তাই বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল না থাকায় বান্দরবান জেলায় গ্রামীণের নেট বন্ধ ছিল। তবে দুই একদিনের মধ্যে নেট সচল করা হবে। তবে গ্রাহকের ভোগান্তির ব্যাপারে বান্দরবানের দায়িত্বে থাকা গ্রামীণ ফোনের এরিয়া ম্যানেজার সুমন চক্রবর্তীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন সদুত্তর না দিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।
– এন এ জাকির

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 BanglarKagoj.Net
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!