রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন

পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থা না থাকায় হুমকীর মুখে ভোগাই বাঁধ

পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থা না থাকায় হুমকীর মুখে ভোগাই বাঁধ

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) : পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থা না থাকায় হুমকীর মুখে রয়েছে ভোগাই নদীর তীর রক্ষা বাঁধ কাম রাস্তা। শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার হাতিপাগার এলাকায় এমন অবস্থা বিরাজ করায় পাহাড়ি ঢলে আকষ্মিক বন্যার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।
স্থানীয়রা জানান, উপজেলার চারআলী বাজার সংলগ্ন হাতিপাগার এলাকায় পাহাড়ি খরস্রোতা নদী ভোগাইয়ের তীর থেকে নালিতাবাড়ী-নাকুগাঁও স্থলবন্দর সড়কের মধ্যবর্তী স্থানে প্রায় ৭০-৮০ একর আবাদি জমি রয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলে এসব জমিতে পানি জমে যায়। এ পানি নিষ্কাষণের ব্যবস্থা না থাকায় ভোগাই নদীর তীর চুয়ে ও ঈঁদুরের গর্ত দিয়ে নদীগর্ভে গিয়ে পড়ে ওই পানি। ফলে নদীর বাঁধটি ধীরে ধীরে নড়বড়ে হয়ে একপর্যায়ে নদীগর্ভে ধ্বসে যায়। গেল টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের সময় হাতিপাগার রইছ উদ্দিনের বাড়ির সন্নিকটে দুই স্থানে তীর ধ্বসে নদীগর্ভে তলিয়ে যায়। এতে করে ধ্বসে যাওয়া অংশ দিয়ে ঢলের পানি প্রবেশ করে আকস্মিক বন্যার সৃষ্টি হয়। বর্তমানে ধ্বসে যাওয়া দুটি অংশে পানি উন্নয়ন বোর্ড বাঁশ-কাঠের পাইলিং তৈরি করে বালুর বস্তা ফেলে বাঁধ তৈরির কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু এ বাঁধ তীর রক্ষার জন্য যথেষ্ট নয় বলে জানান এলাকাবাসী।

স্থানীয় নয়াবিল ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুছ আলী দেওয়ান জানান, ধ্বসে যাওয়া অংশসহ আশপাশের বাঁধের বেশকিছু অংশ হুমকীর মুখে রয়েছে। এসব স্থানে বালুর বস্তা দিয়ে বাঁধের পরিবর্তে সিসি ব্লক দিয়ে স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন। একইসঙ্গে হাতিপাগারের ওই মাঠ থেকে পানি অপসারণের জন্য প্রয়োজনীয় ড্রেনেজ ব্যবস্থা জরুরী বলেও দাবী করেন তিনি।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমান জানান, সরেজমিনে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 BanglarKagoj.Net
Design & Developed BY ThemesBazar.Com