শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন

বান্দরবানের রুমায় অস্ত্রের মুখে ৬ গ্রামবাসীকে অপহরণ

বান্দরবানের রুমায় অস্ত্রের মুখে ৬ গ্রামবাসীকে অপহরণ

বান্দরবান : বান্দরবানের রুমায় অস্ত্রের মুখে ৬ উপজাতী গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা। রবিবার (১৫সেপ্টেম্বর) দুপুরে রুমা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দূর্গম সামাখাল নামক এলাকা থেকে তাদের অপহরণ করা হয়। অপহৃতদের মধ্যে পাঁচ জনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন- সামাখাল এলাকার গ্রামবাসী হ্লামং মার্মা (৪৯) বাসিং অং মার্মা (৩০) মংগ্যাই মারমা (৫৮), থোয়াই মার্মা (৬২) চিং থোয়াই মারমা (৫৪)।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রুমা সদর ইউনিয়নের দুর্গম সামাখাল পাড়ায় একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী হানা দিয়ে গ্রামবাসীকে মারধর করে ও বাসা বাড়িতে লুটপাট চালায়। পরে সন্ত্রাসীরা ওই গ্রাম থেকে অস্ত্রের মুখে ৬ জনকে ধরে নিয়ে যায়।
রুমা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শৈবং মারমা বলেন, দুপুর বারোটার দিকে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী সামাখাল পাড়ায় হঠাৎ আক্রমণ করে। তারা সেখানে পাড়াবাসিদের মারধর করে ও লুটপাট চালায়। পরে সন্ত্রাসীরা ওই পাড়া থেকে ছয় জনকে ধরে নিয়ে যায়। কে বা কারা তাদের ধরে নিয়ে গেছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি। তবে স্থানীয়রা বলছেন, মগ লিবারেশন পার্র্টির সদস্যরা দুপুরে ওই পাড়ায় হানা দিয়েছে।
এর আগে বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) একটি সন্ত্রাসী দল বগামুখ পাড়ায় হানা দিয়ে একইভাবে লুটপাট চালায় ও পাড়ার লোকদের মারধর করে। পরে সন্ত্রাসীরা ১৪ সেপ্টেম্বর শনিবার সামাখাল পাড়ায় গিয়ে একই কাজ করলে এলাকাবাসী তা সেনাবাহিনীকে জানায়। এর ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে সন্ত্রাসীরা আজ রবিবার সামাখাল পাড়ায় হানা দিয়ে ৬ গ্রামবাসীকে অপহরণ করে বলে ধারণা গ্রামবাসীর। খবর পেয়ে অপহৃতদের উদ্ধারে পুলিশ ও সেনাবাহিনী ওই এলাকায় যৌথঅভিযান চালাচ্ছে।
রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) নজরুল ইসলাম বলেন, সদর ইউনিয়নের দূর্গম সামাখাল এলাকায় ১০/১২ জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ ৫/৬ জন গ্রামবাসীকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। দূর্গম এলাকা হওয়ায় মোবাইল নেট না থাকায় যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। অপহৃতদের উদ্ধারে অভিযান শুরু হয়েছে। কে বা কারা অপহরণ করেছে সে বিষয়েও কিছু বলা যাচ্ছে না।
উল্লেখ্য, এর আগে গত ১৯ আগষ্ট সদর ইউনিয়নের মুন্নুয়াম পাড়ার সড়কে মিনঝিড়ি রাস্তার মুখ থেকে চাঁদা না দেয়ায় তিন জীপ চালককে অপহরণ করে মগ লিবারেশন পার্টির সন্ত্রাসীরা। পরে আইন শৃংখলা বাহিনীর অভিযান ও মুক্তিপন দিয়ে তারা ফিরে আসেন।
– এন এ জাকির

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 BanglarKagoj.Net
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!