মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬:২৬ অপরাহ্ন

হুইপ আতিকের শেরপুর ত্যাগের দাবিতে নির্বাচন অফিস ঘেরাও

হুইপ আতিকের শেরপুর ত্যাগের দাবিতে নির্বাচন অফিস ঘেরাও

শেরপুর : আগামী ১৪ অক্টোবর ইভিএম পদ্ধতিতে অনুষ্ঠেয় শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের পক্ষে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে স্থানীয় সংসদ সদস্য, সরকার দলীয় হুইপ আতিউর রহমান আতিকের শেরপুর ত্যাগের দাবিতে এবার জেলা নির্বাচন অফিস ঘেরাও কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে প্রায় সহস্রাধিক কর্মী-সমর্থক নিয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় ঘেরাও করে প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী ওই কর্মসূচি পালন করেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মিনহাজ উদ্দিন মিনাল। একইসাথে তিনি হুইপ কন্যা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা ডাঃ শারমিন রহমান অমি ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী রফিকুল ইসলামের ছেলে স্বাস্থ্য বিভাগের মাঠ কর্মী ছায়েদুল ইসলাম শাওনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তোলা হয় ওই ঘেরাও কর্মসূচিতে। বুধবারের মধ্যে হুইপ আতিক শেরপুর ত্যাগ না করলে এবং তার কন্যা ডাঃ অমি ও প্রার্থীপুত্র শাওন নির্বাচনী কর্মকা- থেকে বিরত না হলে বা তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না হলে বৃহস্পতিবার পুনরায় জেলা নির্বাচন অফিস ঘেরাওসহ কঠিন কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও ঘোষণা দেন চেয়ারম্যান প্রার্থী মিনাল।
এদিকে জেলা নির্বাচন অফিস ঘেরাওকে কেন্দ্র করে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অফিসের ভেতরে-বাইরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ওই ঘেরাও কর্মসূচি চলাকালে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে হুইপ আতিউর রহমান আতিক এমপি’র সাথে কথা বলা হয়। এতে আগামী ১০ অক্টোবর হুইপ আতিক শেরপুর ত্যাগ করার আশ^াস দিলে মিনাল সমর্থকরা অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করেন।
স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনাল বলেন, নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা আমাদের জানিয়েছেন, হুইপ আতিক ১০ অক্টোবর শেরপুর ত্যাগ করবেন। তার মেয়ে ডাঃ অমিকে ওই বিষয়ে পত্র দেওয়া হয়েছে। তাই আমরা নির্বাচন অফিস ঘেরাও করে অবস্থান কর্মসূচি ২ দিনের জন্য স্থগিত করেছি। যদি এর মধ্যে কোন কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া না হয়, তাহলে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে আবারও নির্বাচন অফিসের সামনে অনির্দিষ্টকালের অবস্থান কর্মসূচি শুরু করা হবে।
এ ব্যাপারে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শুকুর মাহমুদ মিঞা বলেন, আমরা হুইপ আতিক মহোদয়ের সাথে স্বতন্ত্র প্রার্থীর অভিযোগের বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি। তিনি সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সকল সরকারি কর্মসূচি স্থগিত করে ১০ অক্টোবর শেরপুর থেকে চলে যাওয়ার বিষয়ে আমাদের আশ^স্ত করেছেন। হুইপের মেয়ে ডাঃ শারমিন রহমান অমি’র ব্যাপারে আনা অভিযোগের বিষয়টি উল্লেখ করে চিঠি দিয়ে তাকে সতর্ক করা হয়েছে। প্রয়োজনে তার ব্যাপারে পরিবার-পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ডিজিকে বিষয়টি অবহিত করা হবে। স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনাল এবং তার সমর্থকদের বিষয়গুলো অবহিত করলে তারা অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেন।
উল্লেখ্য, এর আগে একই দাবিতে শেরপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন বিদ্রোহী প্রার্থী মিনাল। তার অভিযোগ, হুইপ আতিক সরকারি সুবিধাভোগী একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হয়েও গত ৩ অক্টোবর থেকে ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত সরকারি সফরের নামে শেরপুর সদরে অবস্থান করে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে চকবাজার দলীয় কার্যালয় এবং বাড়িতে নেতা-কর্মীদের নিয়ে বৈঠকসহ নানা নির্দেশনা দিচ্ছেন। এছাড়া হুইপকন্যা ডাঃ শারমিন রহমান অমি ও প্রার্থীপুত্র ছায়েদুল ইসলাম শাওন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী হয়েও নৌকার পক্ষে সরাসরি ভোট চাইছেন- যা নির্বাচনী আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 BanglarKagoj.Net
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!