1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ০৭:১০ পূর্বাহ্ন

নালিতাবাড়ীতে বালুবোঝাই ট্রাকের চাপে ভেঙ্গে দেবে গেল ব্রিজের একাংশ

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০
  • ১৫৫ বার পড়া হয়েছে

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) : অতিরিক্ত বালু পরিবহনের ফলে নাকুগাঁও ভোগাই সেতুর একাংশ ভেঙ্গে যাওয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার বালু বোঝাই ট্রাকের লোড নিতে না পেরে ব্রিজের র‌্যালিং, এপার্টমেন্ট ও এপ্রোচ ভেঙ্গে দেবে গেছে। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) বিকেল তিনটার দিকে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার পাহাড়ি পল্লী আন্দারুপাড়া শান্তির মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে জনভোগান্তি বেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ এলাকাবাসী।
স্থানীয় সূত্র জানায়, সীমান্ত সড়কের বুরুঙ্গা ব্রিজের উত্তরে ভারত থেকে বয়ে আসা পাহাড়ি নদী চেল্লাখালীতে প্রতিবছর বালু উত্তোলনের জন্য বালু মহাল হিসেবে বেশকিছু এলাকা লীজ দেয় জেলা প্রশাসন। এ সুযোগে সরকারী নির্দেশনা না মেনে বালু ব্যবসায়ীরা যত্রতত্র বালু উত্তোলন অব্যাহত রাখে বছরজুড়ে। যেখানে-সেখানে নদীর তলা বোরিং করে খনিজ বালু উত্তোলন, নদী তীরবর্তী সমতল ভূমি খুঁড়ে খনিজ বালু উত্তোলন, নদী তীরবর্তী পাহাড় ও পাহাড়ি বনভূমি ইত্যাদি খুঁড়ে বালু উত্তোলনে চলে মহোৎসব। ফলে গত কয়েক বছরে নদীটি মৃত প্রায়। ঝুঁকিতে পড়েছে সীমান্ত সড়কে প্রায় চৌদ্দ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বুরুঙ্গা ব্রিজ।
অন্যদিকে যান চলাচলের উপযুক্ত রাস্তা না থাকলেও আদিবাসী গ্রাম খলচান্দায় যাতায়াতের কাঁচা রাস্তা দুটি দিয়ে অতিরিক্ত বালু বোঝাই ট্রাক চলাচল করে খনাখন্দে পরিণত করা হয়েছে। শুকনো মৌসুমে প্রচন্ড বালু আর বর্ষা মৌসুমে কাঁদাপানিতে একাকার হয়ে ওই এলাকায় যাতায়াত বিঘিœত হয় সবসময়।

স্থানীয়দের মতে, গত কয়েক বছরে বালু মহাল ইজারার নামে এ এলাকায় চলে আসছে পরিবেশের মারাত্মক ধ্বংসযজ্ঞ। প্রশাসন মাঝে মাঝে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করলেও তা থোরাই কেয়ার করেন বালু ব্যবসায়ীরা। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনটার দিকে একটি ট্রাক অতিরিক্ত বালু বোঝাই করে আন্দারুপাড়াস্থ খলচান্দা যাওয়ার ব্রিজ পাড় হয়ে আসছিল। এসময় ব্রিজের একপাশের র‌্যালিং, এপার্টমেন্ট ও এপ্রোচ ভেঙ্গে দেবে যায়। যোগাযোগে স্থানীয়দের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে ব্রিজটি প্রায় এক যুগ আগে বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন নির্মাণ করে।
স্থানীয় ভুক্তভোগীরা জানান, নদীতে বর্তমানে পর্যাপ্ত বালু না থাকলেও সরকার ইজারা দিয়ে যাচ্ছে। এতেকরে নদীর নাব্যতা নষ্ট ও প্রকৃতি ধ্বংস হচ্ছে। হুমকীর মুখে পড়েছে সরকারী স্থাপনা। বালু পরিবহনের ফলে রাস্তা-ঘাট নষ্ট হয়ে যাওয়ায় ভোগান্তি বেড়েই চলেছে স্থানীয়দের।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আজাদ মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অতিরিক্ত বালুভর্তি ট্রাক পরিবহন করে খলচান্দা গ্রামের প্রবেশের রাস্তায় থাকা ব্রিজে উঠায় ব্রিজের একাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসময় তিনি ব্রিজের একাংশ ভেঙ্গে যাওয়ার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমান জানান, পরিদর্শন করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Customized By BreakingNews