1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ১২:৩৬ অপরাহ্ন

নালিতাবাড়ীতে ভূমিহীন পরিবারকে উচ্ছেদ করতে গিয়ে জনরোষে বন বিভাগ

  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ১ জুন, ২০২০
  • ১৬৯ বার পড়া হয়েছে

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) : ভূমিহীন একটি অসহায় পরিবারকে উচ্ছেদ করতে গিয়ে জনরোষের শিকার হয়েছেন স্থানীয় বন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এসময় বিট কর্মকর্তা ছাড়াও আহত হয়েছে নারীসহ কয়েকজন। সোমবার (২ জুন) দুপুরে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার ভারত সীমান্তবর্তী পশ্চিম সমশ্চুড়া গ্রামের কালিস্থান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, পশ্চিম সমশ্চুড়া কালিস্থান রঞ্জনা ঝরণা সংলগ্ন নিবৃত একটি পাহাড়ের ঢালে চান মিয়া নামে এক ভূমিহীন দিনমজুর কিছুদিন আগে সামান্য জমিতে মাথা গোঁজার জন্য একটি ঘর নির্মাণ করেন। ওই ঘরে চাঁন মিয়ার স্ত্রী-সন্তান ছাড়াও চাঁন মিয়ার বৃদ্ধা নানী বসবাস করছিলেন। ঘর নির্মাণের পর থেকেই স্থানীয় কতিপয় ব্যক্তি বন বিভাগের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে এ বিষয়ে মৌখিক অভিযোগ করেন। ফলে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সোমবার দুপুরে স্থানীয় মধুটিলা রেঞ্জ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল করিম, পার্শ্ববর্তী রাংটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ইলিছুর রহমান, সমশ্চুড়া বিট কর্মকর্তা আব্দুর রউফ মিয়া, সন্ধ্যাকুড়া বিট কর্মকর্তা রাশেদ ইবনে সিরাজসহ বন বিভাগের অন্যান্য কর্মচারী ও সামাজিক বনায়নের অংশীদাররা মিলে অসহায় ওই পরিবারটি উচ্ছেদে নামেন। এসময় উচ্ছেদের শিকার পরিবারের সদস্যরা বন বিভাগের লোকেদের প্রথমে অনুরোধ ও পরে বাধা প্রদান করে। একপর্যায়ে অসহায় পরিবারটির পক্ষে এলাকাবাসী প্রতিরোধ গড়ে তোলে ও বন বিভাগের লোকদের ধাওয়া করে।
উচ্ছেদের শিকার চান মিয়া (২৪) ও তার আহত স্ত্রী মজিরন (২০) জানায়, তাদের ভিটেমাটি না থাকার বন বিভাগের আওতায় পাহাড়ের নিচে ও সামাজিক বনের বাইরে সমতল সামান্য ভূমিতে একটি ঘর উঠিয়ে বসবাস শুরু করেছিলেন। এসময় স্থানীয় আশকর আলীসহ কতিপয় ব্যক্তি তাদের কাছে ওই ভূমিতে থাকার ব্যবস্থা করতে ৫০ হাজার টাকা দাবী করে। দাবীকৃত টাকা না দেওয়ায় তারা বন বিভাগকে উস্কে দিয়েছে।
তারা আরও জানায়, ঘর ভেঙ্গে দেওয়ার সময় তারা বাধা দেওয়ায় বন বিভাগের লোকজন তাদের গায়ে হাত তোলে ও মারধর করে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, পাহাড়ের শত শত একর বন বিভাগের ভূমি দীর্ঘদিন যাবত অনেকের দখলে রয়েছে। অসংখ্য মানুষ ভোগদখল করছে। ওসবে বন বিভাগের কোন পদক্ষেপ নেই। একটি অসহায় পরিবার এক কোণে একটি চালাঘর উঠিয়ে বসবাস শুরু করায় তাদের উচ্ছেদ করা অমানবিক। তারা প্রশ্ন রেখে বলেন, দেশে ১২ লাখ রোঙ্গিহার জায়গা হলে একটি অসহায় পরিবারের কেন জায়গা হবে না? এই বৃষ্টির মৌসুমে পরিবারটি উচ্ছেদ করলে তারা কোথায় গিয়ে আশ্রয় নিবে?
এ বিষয়ে মধুটিলা রেঞ্জ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল করিম জানান, উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আমরা উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছি। বন বিভাগের লোকজন কর্তৃক মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি জানান, আমরা উচ্ছেদে গেলে উল্টো আমাদের উপরই হামলা করা হয়েছে। তাদের হামলায় সন্ধ্যাকুড়া বিট কর্মকর্তা রাশেদ ইবনে সিরাজ আহত হয়েছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Customized By BreakingNews