1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন

করোনা আক্রান্তের হারে রেড জোনে নালিতাবাড়ী পৌরসভা

  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ২২ জুন, ২০২০
  • ১৯৯ বার পড়া হয়েছে

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) : তুলনামূলক করোনা আক্রান্তের হারে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে নালিতাবাড়ী পৌরসভায়। অবস্থাদৃষ্টে রেড জোনের আওতায় এনে কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
রোববার (২১ জুন) রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা মতবিনিময় করতে গেলে এমন বিষয় উঠে আসে।
সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমান জানান, করোনা আক্রান্তের বেশিরভাগই পৌরসভার বাসিন্দা। সে হিসেবে পৌরসভাকে রেড জোনের আওতায় আনার সময় হয়েছে। এসময় নালিতাবাড়ীর করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহতা ও জনসাধারণের স্বাস্থ্যবিধি না মানার প্রবণতা নিয়ে ভবিষ্যত করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। সাংবাদিকদের পক্ষে আলোচনা করেন- প্রেসক্লাব নালিতাবাড়ী’র আহবায়ক লাল মোহাম্মদ শাহজাহান কিবরিয়া, যুগ্ম-আহবায়ক সাইফুল ইসলাম, সদস্য সচিব মুঞ্জুরুল আহসান, সদস্য জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার এবং বাংলার কাগজ প্রকাশক ও সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাংলার কাগজকে দেওয়া তথ্যমতে, গত ১৫ এপ্রিল প্রথম নালিতাবাড়ীতে করোনা পজেটিভ রোগী শনাক্ত হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে এর ব্যপ্তি বাড়তে থাকে। সবশেষ ২০ জুন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাড়ায় ৩৯ জনে। যদিও নমুনা পরীক্ষা ছাড়াই করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর ঘটনায় আরও একজন করোনায় আক্রান্তের ঘটনা রয়েছে। সে হিসেবে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ায় ৪০ জনে। এরমধ্যে নমুনা সংগ্রহে সরকারী হিসেবে মৃত্যু হয়েছে একজনের। তবে বেসরকারী মতামতে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে একজন ঢাকা থেকে আক্রান্ত হয়ে বাড়ি আসার পর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তার বাড়ি গোজাকুড়ায়। অন্যজনের মৃত্যুর পর করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। তার বাড়ি দক্ষিণ সোহাগপুর। উভয়ের বয়স ৩০-৩৫ এর মধ্যে।
এছাড়াও করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২১ জন। ১৭ জন রয়েছেন চিকিৎসাধীন। চিকিৎসাধীনদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর ইউএইচ এন্ড এফপিও (উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা) ডাঃ রেহমা সারোয়াত সালামও রয়েছেন। তবে যে চিত্রটি ভয়াবহ তা হলো, আক্রান্তদের অধিকাংশই পৌরসভার বাসিন্দা। সরকারী হিসেবে মোট আক্রান্ত ৩৯ জনের মধ্যে ৩২জনই পৌর শহরের বাসিন্দা। শুধুমাত্র শহরের ১ ও ৯নং ওয়ার্ড ব্যতীত প্রতিটি ওয়ার্ডেই রয়েছে করোনা আক্রান্ত রোগী। তবে এ দুটি ওয়ার্ড থেকে প্রেরিত নমুনার ফলাফল আসার পর জানা যাবে এ দুটি ওয়ার্ডের বর্তমান অবস্থাও।
হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার (রোগতত্ত্ব) ডাঃ এসএম নাকিবুল মাজেদ বাংলার কাগজকে জানান, আক্রান্তের হারে পৌরসভাকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করা উচিত। বর্তমানে পৌরসভায় আক্রান্তের হার আশঙ্কাজনক।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Customized By BreakingNews