1. admin@banglarkagoj.net : admin :
শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ১১:৫০ অপরাহ্ন

ওমানে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত

  • আপডেট টাইম :: মঙ্গলবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ২৮ বার পড়া হয়েছে

প্রবাসের ডেস্ক : ওমানে সড়ক দুর্ঘটনায় মৌলভীবাজারের তিনজনসহ চার বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজনের বাড়ি জেলার কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলায়।

এরা হলেন- কুলাউড়ার হাজীপুর ইউনিয়নের বিলেরপার গ্রামের লিয়াকত আলী (৩৫), শরীফপুর ইউনিয়নের সঞ্জরপুর গ্রামের সবুর আলী (৩৩) ও কমলগঞ্জের আলীনগর ইউনিয়নের চিতলীয়া বাজারের টিলালাইনের আলম আহমদ (৩৫)।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায় ওমানের আদম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। প্রবাসীদের মাধ্যমে মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে নিহত তিনজনের গ্রামের বাড়িতে শুরু হয়  মাতম।

ওমানের আদম এলাকায় কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিক ও নিহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় কাজ শেষে বাসায় বাইসাইকেলযোগে ফেরার সময় দ্রুতগতির প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই চার বাংলাদেশির মৃত্যু হয়।

ওমানে কর্মরত লিয়াকত আলীর শ্যালক জসিম উদ্দীন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলেই তিনজনকে চিনতে পারলেও অপরজনের চেহারা বিকৃত হওয়ায় চেনা যায়নি।

নিহত আলমের ছোট ভাই রাইজিংবিডিকে জানান, তার বড় ভাই পরিবারের স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনার আশায় স্ত্রী ও দুই সন্তানকে রেখে ধার-দেনা করে ছয় মাস আগে ওমানে পাড়ি দেন। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস আজ শুধুই আহাজারি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শামীম আহমদ জানান, আব্দুল বাছিতের ছেলে আলম আহমদ পাঁচ মাস আগে ওমানে যান। তার স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। তার মৃত্যুর সংবাদে গ্রামের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সঞ্জরপুর গ্রামের নিহত সবুর আলীর মামাতো ভাই কামাল খান বলেন, গ্রামের আব্দুস শহীদের ছেলে সবুর আলী ১০ বছর ধরে ওমান ছিল। দুই বছর আগে দেশে আসে একবার। কিছুদিন থাকার পর আবার ওমান পাড়ি জমায়।

তিনি বলেন, তার মা আছেন, বাবা নেই। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে সে তৃতীয়। নিহত সবুরের ২ মেয়ে ১ ছেলে রয়েছে।

রাতে হাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চু বলেন, ‘আমার ইউনিয়নের লিয়াকত আলীসহ নিহত তিনজনের লাশ যাতে তাড়াতাড়ি দেশে ফিরে আসে, সেজন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2019 BanglarKagoj.Net
Theme Customized By BreakingNews