1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ১১:০৬ অপরাহ্ন

আলীকদমে কিশোরের মৃত্যু: করোনা সন্দেহে পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ, ২০২০
  • ১৮২৭ বার পড়া হয়েছে

বান্দরবান : বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় করোনার লক্ষণ নিয়ে সরোয়ার আলম নামে (১৭) এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপর দেড়টার দিকে সে মারা যায়। তার বাড়ী আলীকদম সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ পূর্ব পালংপাড়ায়। সে ওই এলাকার আব্দুস সালামের পুত্র।
জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে সরোয়ার আলম জ্বরসহ গলাব্যথা ও সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে বারোটার সময় সে আলীকদম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর সামনে ডাক্তার মাহাতাব উদ্দীন ব্যক্তিগত এর চেম্বারে আসে। এসময় ডাক্তার তার লক্ষণ দেখে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেন। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) ডাক্তার মাহতাব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, আলীকদম থানার অফিসার্স ইনচার্জ ও ল্যাব টেকনিশিয়ানকে সাথে নিয়ে ওই রোগীর বাড়ি গিয়ে ব্লাড ও নাকের সোয়াব নিয়ে আসেন পরীক্ষার জন্য। এর কিছুক্ষণ পরই কিশোরটি মারা যায়। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক দেখা দিলে হাসপাতালের লোকজন ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দীনসহ অন্যান্যরা সতর্কতার সাথে মৃতের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করেন। একইসঙ্গে মৃতের পরিবারের বাকী চার সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এছাড়াও ওই পূর্ব পালংপাড়াটি সম্পূর্ণ লকডাউন করে দেয়া হয়।
এ বিষয়ে আলীকদম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মাহতাব বলেন, ছেলেটি আমার চেম্বারে এসেছিল। তার মধ্যে গলাব্যথা, শ্বাসকষ্ট, পাতলা পায়খানা ও কাশি ছিল। এ মুহুর্তে যেহেতু পরিস্থিতি ভালো না তাই তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেই এবং যেহেতু কিছু সন্দেহজনক লক্ষণ ছিল তাই আমি নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার অফিসার্স ইনচার্জকে নিয়ে ছেলেটির বাড়ি গিয়ে পরীক্ষার জন্য স্যাম্পল আনার পর জানতে পারি, সে মারা গেছে। তাই আমরা তার কয়েকটা পরীক্ষা করিয়েছি। সেখানে কিডনিজনিত সমস্যা দেখতে পাচ্ছি। তারপরও যেহেতু লক্ষণ ছিল তাই পরীক্ষার জন্য তার সোয়াব চট্টগ্রাম পাঠানোর ব্যবস্থা করেছিা। তবে করোনা কিনা সেটা এখনো বলা যাচ্ছে না।
সিভিল সার্জন ডাক্তার অং শৈ প্রু জানান, যে ছেলেটি মারা গেছে, পরীক্ষা করে তার কিডনিতে সমস্যা পেয়েছি। তারপরও যেহেতু কিছু লক্ষণ ছিল তাই কনফার্ম হওয়ার জন্যতার নাকের সোয়াব চট্টগ্রাম পাঠানো হবে।
জেলা প্রশাসক দাউদুল ইসলাম বলেন, আলীকদমে একটি ছেলের মৃত্যুর খবর শুনেছি। এখন সর্দি-কাশি যে কারো হতে পারে। তাই বলে করোনা আক্রান্ত বলা যাবে না। রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। তারপরও সতর্কতা স্বরুপ আমরা ওই পরিবার এবং ওই পাড়াকে লকডাউন করে রেখেছি।
– এন এ জাকির

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Customized By BreakingNews