1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ০৯:৫৬ অপরাহ্ন

কুয়াকাটায় ব্রীজ ভেঙ্গে নদীতে: ভোগান্তিতে হাজারো মানুষ

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ৬ মে, ২০২০
  • ৭৪ বার পড়া হয়েছে

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কুয়াকাটার পর্যটন ইউনিয়ন নামে খ্যাত লতাচাপলী ইউনিয়নের লক্ষ্মীর খালের উপর নির্মিত আয়রণ ব্রীজটি ভেঙ্গে দীর্ঘদিন নদীতে পড়ে আছে। এর ফলে ব্রীজটি এখন এলাকাবাসীর জন্য মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে।
স্থানীয় সরকার অধিদপ্তর দেড় যুগ আগে এ ব্রীজটি নির্মাণ করলেও সংস্কারের অভাবে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ব্রিজটির উপর দিয়ে লতাচাপলী ও খাপড়াভাঙ্গা দু’ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ প্রতিদিন চলাচল করত। বর্তমানে ব্রীজটি ভেঙ্গে নদীগর্ভে পড়ে থাকায় জনদুর্ভোগ চরমে উঠেছে। একদিকে নোভেল করোনা ভাইরাসের কারণে মানুষ ঘরবন্দী হয়ে কর্মবিমুখ হয়ে পড়েছে। অপরদিকে দু’ ইউনিয়নের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় এ অঞ্চলের হতদরিদ্র কৃষকের উৎপাদিত ফসল বাজারজাত করতে না পারায় অসহায় জীবন যাপন করতে হচ্ছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কুয়াকাটাসহ উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের সাপ্তাহিক বাজার মৎস্য বন্দর আলীপুর ও মহিপুর। তাই নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয় বিক্রয়ের জন্য মিশ্রিপাড়া, নয়া মিশ্রিপাড়া, লক্ষ্মীরহাট, খাপড়াভাঙ্গা ও মমনসাতলী গ্রামের লোকজনের এ ব্রীজ পার হয়ে আসতে হয় সাপ্তাহিক বাজারে। যোগাযোগ বিচ্ছিন্নতার কারণে ঘরবন্দী মানুষের দুঃখ-কষ্টের যেন শেষ নেই। স্থানীয় সরকার অধিদপ্তর ২০০১ সালে লক্ষ্মীর খালের উপর এ আয়রণ ব্রীজটি নির্মাণ করে। প্রতিদিন এই ব্রীজটির উপর দিয়ে খাপড়াভাঙ্গা ও লতাচাপলী দু’ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করছে। করোনা ভাইরাসের কারণে বর্তমানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও স্বাভাবিক সময় কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রী কলেজ, ঐতিহ্যবাহি মিশ্রীপাড়া ফাতেমা হাই মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মিশ্রিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহস্রাধিক ছাত্র-ছাত্রীর ব্রীজ পার হয়ে স্কুল-কলেজে আসতে হয়।
অথচ মেরামত না হওয়ায় সম্প্রতি ব্রীজটি ভেঙ্গে নদীতে পরে দুই ইউনিয়নের যোগাযোগ একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। একদিকে প্রকৃতির বিরূপ আচরণ নোভেল করোনা ভাইরাস, অপরদিকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অব্যবস্থাপনা। যেন দেখার কেউ নাই।
লক্ষ্মীর গ্রামের অধিবাসী শফিকুল আলম ও আঃ রশিদ হাওলাদার জানান, নির্মাণের পর থেকে এ ব্রিজটির অদ্যবদি কোন মেরামত করা হয়নি। লোকজনের চলাচলে দুর্ভোগ দেখে স্থানীয়রা কিছুদিন কাঠের তক্তা দিয়ে মেরামত করে চলাচল করছে। তাও সম্প্রতি ভেঙ্গে গিয়ে একেবারে অচলাবস্থা হয়ে গেছে।
লতাচাটলী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আনছার উদ্দিন মোল্লা জানান, অনেক আগেই ব্রীজটি দিয়ে চলা অনুপযোগি ঘোষণা করা হয়েছে। সংস্কারের জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে যোগাযোগ হয়েছে।
কলাপাড়া উপজেলা প্রকৌশলী মো: মোহর আলী বলেন, বর্তমানে করোনা ভাইরাসের এ বিপর্যস্ত ও দুর্যোগময় পরিস্থিতির কারনে কাজ বন্ধ রয়েছে। লকডাউনের পরই ব্রীজ নির্মাণের জন্য দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণে চেষ্টা করা হবে।
– রাসেল কবির মুরাদ

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Customized By BreakingNews