1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:০২ পূর্বাহ্ন

যশোরে নিরীহ ব্যবসায়ীর নামে মাদক মামলা : পূর্ব শত্রুরা সাক্ষি

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ১২ আগস্ট, ২০২০
যশোর : যশোরের শার্শা উপজেলায় এক নিরীহ ব্যবসায়ীর নামে মিথ্যা মাদক মামলা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আর এ মামলার সাক্ষিরা আসামির পূর্ব শত্রু বলে এলাকাবাসির দাবি।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ৬ আগস্ট বিকাল ৩টা ৪৫ মিনিটে শার্শার সাতমাইল-গোগা সড়কের আমলাই ব্রীজের পাশ থেকে বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সদস্যরা এক অভিযান চালিয়ে ২৬ বোতল ভারতীয় বাংলা মদ সহ জাকির হোসেন নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেন। মামলার বিবরনীতে উল্লেখ রয়েছে, ১নং আসামি জাকির হোসেনসহ দুইজন দুটি বস্তায় করে ঐ সড়কের পাশ দিয়ে মাদক বহন করে আনছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামিরা পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় জাকিরকে আটক করতে পারলেও পুলিশ ২য় আসামি আলী হোসেনকে আটক করতে পারেনি। পরে ১নং আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আলী হোসেনের নাম উঠে আসে। এবং তাকে ২নং আসামি হিসাবে মামলাই নথিভুক্ত করা হয়।
উক্ত মামলা আসামি আলী হোসেনের দাবি, সে নিজে ঐ দিন সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত নাভারনের এক মাছের আড়তে ছিল। সেখানে মাছ বিক্রি করতে গিয়েছিল। ফেরার পথে সাতমাইল-গোগা সড়কের আমলাই ব্রীজের পাশে পুলিশের অভিযান চলাকালিন সময়ে সেখানে উপস্থিত ছিলেন তিনি। সেখানে মাদক উদ্ধারের ঘটনা তিনি নিজেই দেখেছেন। এ ছাড়া মাছের ঘের ব্যবসা সংক্রান্ত বিষয়ে মাদক মামলার সাক্ষিদের সাথে আমার রয়েছে দীর্ঘদিনের সত্রুতা।
এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শার্শা থানার এসআই খাঁন মাসুদ রানা’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসামি ও সাক্ষিদের ভাষ্যমতে তাকে আসামি করেছেন মামলার বাদি। এ ব্যাপারে ব্যাপক তদন্ত হবে। যদি তিনি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত না থাকেন তবে তার পক্ষে রিপোর্ট যাবে।
বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ওসি সুকুমার জানান, ধৃত আসামি ও স্থানীয় সাক্ষিদের সাক্ষ্য মতে পালিয়ে যাওয়া ব্যক্তি হলেন আলী হোসেন। তদন্তকারী কর্মকর্তার তদন্তে বেরিয়ে আসবে আসলে তিনি মাদক ব্যবসায়ী কি না।
গোগা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি সদস্য শামছুজ্জামান বুলু বলেন, আলী হোসেন মাছের ঘের ও বালু ব্যবসায়ী হিসাবে পরিচিত। সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত আছে বলে আমার জানা নেই।
গোগা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আব্দুর রসিদ জানান, ঘের ও বালু ব্যবসায়ী আলী হোসেন একজন ভাল মানুষ হিসাবে আমার জানা। সে কখনোই মাদকের সাথে সম্পৃক্ত নয়। যা এলাকাবাসী জানেন। ব্যবসায়ীক শত্রুতার কারনে পুলিশকে ভুল তথ্য দিয়েছে মামলার সাক্ষিরা। তদন্ত করলেই আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!