1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৯:১১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

পদ্মাসেতুর রেললাইনের নকশা সংশোধন: অর্থ-সময় বাড়ার শঙ্কা নেই

  • আপডেট টাইম :: মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বাংলার কাগজ ডেস্ক : পদ্মা সেতুর রেলসংযোগ প্রকল্পের ডিজাইনের ভুলে সেতু দিয়ে ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান চলাচল নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এই অবস্থায় নকশা সংশোধনের  উদ‌্যোগ নেওয়া হয়েছে। রেলপথ-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আগামী সপ্তাহ নাগাদ সংশোধিত নকশা পাওয়া যেতে পারে। তবে, এতে নির্মাণব্যয় ও সময়  বাড়বে না বলে মনে করছেন তারা।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব সেলিম রেজা বলেন, ‘কয়েকমাস আগে পদ্মাসেতুর রেললাইনের ডিজাইনে ত্রুটির বিষয় আলোচনায় আসে। এরপর প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে নকশা পরিবর্তনের দায়িত্ব দেওয়া হয়। আগামী সপ্তাহে সংশোধিত নকশা পাওয়ার কথা। এরপর এই বিষয়ে করণীয় নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা হবে।’

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মূল পদ্মাসেতু হচ্ছে দ্বিতল। এর মধ্যে নিচতলায় চলবে ট্রেন।  ওপরে চার লেনের সড়কে চলবে গাড়ি। সেতুতে গাড়ি প্রবেশ ও বের হওয়ার জন্য থাকছে আলাদা রাস্তা।

ট্রেনগুলো গাড়ি প্রবেশের রাস্তার ওপর দিয়ে গিয়ে তারপর সেতুতে উঠবে। এমন নকশাতেই পদ্মা বহুমুখী সেতু ও রেল সংযোগ নির্মাণ করা হচ্ছে পৃথক দুটি প্রকল্পে। সেতুর নির্মাণকাজ ঠিক থাকলেও ত্রুটি দেখা দেয় রেললাইন নির্মাণে। গাড়ি প্রবেশের রাস্তার ওপর দিয়ে রেলপথটি প্রয়োজনীয় উচ্চতায় বানানো হচ্ছে না। উচ্চতা কম হওয়ায় গাড়ি চললে সেটি ওপরে থাকা রেলপথের ভায়াডাক্টের (সেতু থেকে সড়ক পর্যন্ত উড়াল রেললাইন) সঙ্গে আটকে যাওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আপত্তি তোলে সেতু কর্তৃপক্ষ। আপত্তির মুখে সংশোধন করা হচ্ছে রেললাইনের নকশা।

তবে, সেতু কর্তৃপক্ষ বলছে, পদ্মাসেতুর মাওয়া ও জাজিরা—দুই প্রান্তেই রয়েছে এমন সমস্যা। অথচ রেলওয়ে বলছে, দুই প্রান্ত নয়, শুধু জাজিরা প্রান্তে প্রবেশের ক্ষেত্রেই রেললাইনের ভায়াডাক্টের উচ্চতা প্রয়োজনের চেয়ে কম রয়েছে।

এই বিষয়ে গত ১৯ জুলাই পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ঠিকাদারকে আনুষ্ঠানিক চিঠি দেন পদ্মা সেতু প্রকল্পের ঠিকাদার।  নকশা সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত নির্মাণকাজ বন্ধ করেও দেওয়া হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের নকশা পরিবর্তন হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, পদ্মা সেতু দেশের অন্যতম বৃহৎ প্রকল্প।  নির্মাণ-ব্যয় হচ্ছে ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি টাকা। আর বাংলাদেশ রেলওয়ের বাস্তবায়নাধীন পদ্মাসেতু রেল সংযোগ প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে ৩৯ হাজার ২৪৬ কোটি টাকা।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!