1. monirsherpur1981@gmail.com : banglar kagoj : banglar kagoj
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৪৯ অপরাহ্ন

ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভায় উন্নয়ন প্রকল্পে অনিয়ম

  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২২

তাহমিনা জান্নাত, ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ২ কোটি ২৪ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।

পৌরসভার দত্তপাড়া এলাকায় নির্মিত একটি ড্রেনের কাজ দেখতে গিয়ে এমন অভিযোগ করেন পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস ছাত্তার কমান্ডার। নির্মাণকাজে নিম্নমানের সামগ্রীর ব্যবহার এবং কাজের গতি কম হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। এসময় এত টাকা ব্যয়ে ড্রেন নির্মাণকাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন এলাকাবাসী।

জানা যায়, স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন একটি প্রকল্পের মাধ্যমে ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভায় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন প্রকল্প কাজ শুরু হয় ২০১৯ সালের শুরুর দিকে। প্রায় ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পের আওতায় সুপেয় পানির ব্যবস্থা, ড্রেন ও স্যানিটেশনের কাজ করার কথা ছিল। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্বে রয়েছে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ও ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভা। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও কাজের সময়সীমা বাড়িয়ে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়। কিন্তু বর্ধিত সময়ের মধ্যেও কাজ শেষ করতে পারেনি। কাজ সম্পন্ন হওয়ার সময়সীমা শেষ হওয়ার আগ মুহূর্তে গত ১৭ নভেম্বর পৌর এলাকায় ঈশ্বরগঞ্জ থানা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় ৫০০ মিটার আরসিসি প্রাইমারি ড্রেন নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়। দুই কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ড্রেনের নির্মাণ কাজ পেয়েছে মেসার্স বাচ্চু এন্টারপ্রাইজ। সাড়ে ১৩ ফুট প্রশস্ত ও ১০ ফুট গভীরতায় ড্রেনটি নির্মাণের কাজ করা হচ্ছে। নির্মাণ কাজের সময়সীমা শেষ হয়ে গেলে পুনরায় সময় বাড়ানোর আবেদন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্নিষ্টরা।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাইড ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব থাকা লিটন মিয়া বলেন, কাজের জন্য ভালো মানের ইট ও খোয়া কেনা হলেও এক গাড়ি সামগ্রী একটু খারাপ দেয়া হয়েছে। সাড়ে ১৩ ফুট প্রশস্ত থাকলে ও কোথাও তার চেয়ে কম কেনো জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন কোন কোন জায়গায় একটু কম হয়েছে তবে অনেক জায়গায় সাড়ে ১৩ ফুটের চেয়ে আরো অনেক বেশি হচ্ছে।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী আবুল কায়সার তালুকদার বলেন, প্রকল্পের সময়সীমা শেষ হলেও পুনরায় সময় বাড়ানোর জন্য আবেদন করা হয়েছে। খুবই দ্রুত সময়ে বাকী কাজ সম্পন্ন করা হবে।

পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস ছাত্তার কমান্ডার বলেন, চলমান কাজটি যেন সঠিকভাবে সম্পন্ন হয় সেজন্য প্রায় সময়ই দেখতে যাই। পাশাপাশি কাজের বিভিন্ন সামগ্রী নিম্নমানের না হয় সে বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তারপরও কিছু সামগ্রী নিম্নমানের আছে সেগুলো বাদ দিতে বলা হয়েছে। এলাকার মানুষের যেন কোন দুর্ভোগ পোহাতে না হয়, সে জন্য দ্রুত কাজ সম্পন্ন করার জন্য বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!