1. monirsherpur1981@gmail.com : banglar kagoj : banglar kagoj
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন

ডেসটিনির ৪৬ জনের কারাদণ্ড, ২৩০০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ১২ মে, ২০২২

অপরাধ ও দুর্নীতি ডেস্ক : ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেডের ৪ হাজার ১১৯ কোটি ২৪ লাখ টাকা পাচারের মামলায় প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রফিকুল আমিনসহ ৪৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি, তাদের ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে রফিকুল আমিনকে ১২ বছর কারাদণ্ড, ২০০ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৩ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ডেসটিনির প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান এম হারুন-অর-রশীদকে ৪ বছর কারাদণ্ড, সাড়ে ৩ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ৬ মাস কারাদণ্ড; চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনকে ১০ বছর কারাদণ্ড, দেড় কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড; উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোফরানুল হক, পরিচালক মেজবাহ উদ্দিন ও সাঈদ-উর-রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড, ১৮০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেনকে ৯ বছর কারাদণ্ড, ৩০ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ২ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

ইরফান আহমেদ সানীকে ৯ বছরের সাজা ১৫০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ২ দুই বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। ফারাহ দীবা, ইঞ্জিনিয়ার শেখ তৈয়বুর রহমান, নেপাল চন্দ্র বিশ্বাসকে ৮ বছর করে কারাদণ্ড, ৪০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অর্থদণ্ড দিতে ব্যর্থ হলে তাদের আরও দুই বছর করে কারাভোগ করতে হবে। জমশেদ আরা চৌধুরীকে ৮ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৩৫ কোটি টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অনাদায়ে তাকে আরও ২ বছর কারাগারে থাকতে হবে।

জাকির হোসেন, আজাদ রহমান, আকবর হোসেন সুমনকে ৯ বছর কারাদণ্ড, ১২৫ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আড়াই বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ, মো. সাইদুল ইসলাম খান রুবেল ও মজিবর রহমানকে ৮ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১২৫ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আড়াই বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সুমন আলী খানকে ৯ বছরের জেল, ১২৫ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও আড়াই বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

শিরীন আকতার ও রফিকুল ইসলাম সরকারকে ৮ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১২৫ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও আড়াই বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) মো. দিদারুল আলমকে ৮ বছর কারাদণ্ড, ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ড. এম হায়দারুজ্জামানকে ৬ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১০ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীনকে ৬ বছর কারাদণ্ড, পাঁচ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

কাজী ফজলুল করিমকে ৫ বছর কারাদণ্ড, ৫০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সফিকুল ইসলামকে সাত বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

জিয়াউল হক মোল্লা এবং ফিরোজ আলমকে ৫ বছর করে কারাদণ্ড, ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ওমর ফারুককে ৫ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ২৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সিকদার কবিরুল ইসলামকে ৫ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সুনীল বরুন কর্মকরকে ৮ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৫ কোটি অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ফরিদ আক্তারকে ৮ বছর কারাদণ্ড, আড়াই কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই বছর কারাদণ্ড দেওয়া দিয়েছেন আদালত।

এস এম শহিদুজ্জামান চয়নকে ৮ বছরের কারাদণ্ডর পাশাপাশি ১৫ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আব্দুর রহমান তপনকে সাত বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মেজর সাকিবুজ্জামান খানকে ৫ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

এস এম আহসানুল কবির বিপ্লব এবং এএইচএম আতাউর রহমানকে ৮ বছর করে কারাদণ্ড, ১০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

জিএম গোলাম কিবরিয়া মিল্টনকে ৮ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৫ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা অনাদায়ে তাকে আরও দুই বছর কারাগারে থাকতে হবে।

আতিকুর রহমানকে সাত বছর কারাদণ্ড, ৫ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

খন্দকার বেনজীর আহমেদ, একেএম সফিউল্লাহ এবং দেলোয়ার হোসেনকে ৭ বছর করে কারাদণ্ড, ১ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাবাসের রায় দেওয়া হয়েছে।

জেসমিন আক্তার মিলনকে ৫ বছর কারাদণ্ড, ১ কোটি টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সফিকুল হককে ৭ বছররের কারাদণ্ডের পাশপাশি ১ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মোল্লা আল আমিনকে চার বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাস কারাভোগ করতে হবে।

৪৬ আসামিকে মোট ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে, যা রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আসামিদের মধ্যে রফিকুল আমীন ও মোহাম্মদ হোসেন কারাগারে ছিলেন। রায় ঘোষণার আগে তাদের আদালতে হাজির করা হয়। হারুন-অর-রশিদ, দিদারুল আলম, জেসমিন আক্তার, জিয়াউল হক ও সাইফুল ইসলাম জামিনে থেকে আদালতে হাজির হন।

দিদারুল আলমের সাজার মেয়াদ শেষ হওয়ায় তিনি আদালত থেকে চলে যান। অপর আসামিদের সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভের নামে ডেসটিনি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করে ১ হাজার ৯০১ কোটি টাকা। সেখান থেকে ১ হাজার ৮৬১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়। ওই অর্থ আত্মসাতের ফলে সাড়ে ৮ লাখ বিনিয়োগকারী ক্ষতির মুখে পড়েন বলে মামলা সূত্রে জানা যায়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!