1. monirsherpur1981@gmail.com : banglar kagoj : banglar kagoj
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:৩০ অপরাহ্ন

পর্যটকদের মন কেড়েছে পায়রা বন্দর ফোরলেন সংলগ্ন দৃষ্টিনন্দন বাঁশবাড়ি

  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ৪ মার্চ, ২০২৩

রাসেল কবির মুরাদ, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কলাপাড়ায় টিয়াখালী ইউনিয়নের রজপাড়া গ্রামের পায়রা বন্দরের প্রবেশ পথ শেখ হাসিনা ফোরলেনের পাশে দৃষ্টিনন্দন বাঁশবাড়ি নির্মাণ করেছেন সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান শিমু। ৭ হাজার বাঁশ দ্বারা নির্মাণ করা হয়েছে এই বাঁশবাড়ি। প্রতিদিনই হাজারো পর্যটকদের পদচারণায় এটি এখন পর্যটন স্পটে পরিণত হয়েছে।

শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নিচে বিশাল আকারের পুকুর। উপরে দেয়া হয়েছে বাঁশের পাটাতন। চারপাশে বাঁশের বেড়া দিয়ে তৈরি করা হয়েছে রং-বেরংয়ের অনেকগুলো বাঁশের ছোট ছোট রুম। আবার বাঁশ ও ছন দুটি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে অনেকগুলো ছোট ছোট ঘর। আর এই ছোট ঘরে বসেই পাওয়া যায় কফিসহ নানা ধরণের ফাস্ট ফুড। দূর থেকে দেখলে যে কাউকেই বিমোহিত করে এবং কুয়াকাটায় আগত পর্যটকদের কাছে ধীরে ধীরে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে মনোলোভা এ বাঁশবাড়ির দৃষ্টিনন্দন সৌন্দর্য।

বাঁশবাড়ির পরিচালক সৈয়দ মশিউর রহমান শিমু জানান, দীর্ঘদিন ধরেই তার স্বপ্ন ছিলো বাংলার ঐতিহ্য ধরে রেখে কোন ধরনের কংক্রিট ছাড়াই এমন একটা কিছু তৈরি করা। পরে স্ত্রীর পরামর্শ ও সহযোগীতায় শুধুমাত্র বাঁশ, কাঠ, গোলপাতা এবং ছন দিয়ে এই বাঁশ বাড়ি নির্মাণ করেন তিনি। এটি নির্মাণে তার প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। এটি উদ্বোধনের পর থেকেই পর্যটকদের ভিড় সামলাতে হিমশিত খাচ্ছেন তিনি। তবে আগতদের সর্বোচ্চ সেবা দেয়া চেষ্টা চালাচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, এটি তৈরি করায় কুয়াকাটা থেকে অনেক পর্যটক আসা শুরু করেছে। আপাতত খাবারের ব্যবস্তা করেছি। এরপর পর্যটকদের বিনোদনের ব্যবস্থাও অচিরেই করব।

বগুড়া থেকে আগত পর্যটক সাইফুজ্জামান সামিউর জানান, বগুড়ার একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের নিয়ে কুয়াকাটায় বেড়াতে এসেছি। পথের মাঝে হঠাৎ গাড়ি থামিয়ে বাঁশবাড়ি দেখে গেলাম। সবাই মিলে কফি খেয়েছি। পরবর্তীতে আবার আসবো। এ বাঁশবাড়ি সত্যিই আমাদের মন কেড়েছে। মনে হচ্ছে কুয়াকাটায় আরো একটি নতুন পর্যটন স্পট তৈরি হলো।

রাজশাহী থেকে বেড়াতে আসা পর্যটক জসিম-টুম্পা দম্পত্তি বলেন, পরিবারের সবাইকে নিয়ে কুয়াকাটায় যাচ্ছিলাম। পটুয়াখালী-কলাপাড়া-কুয়াকাটা মহাসড়কের পাশে রজপাড়া নামক স্থানে এ বাঁশবাড়ি দেখে থেমে গেলাম। বেশ মজার একটি স্থান। ভালোই উপভোগ করেছি।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা জসিম জানান, বাঁশবাড়ির ক্যাফেতে আগত পর্যটকদের নিরাপত্তায় সবসময়ই সচেষ্ট রয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!