1. monirsherpur1981@gmail.com : banglar kagoj : banglar kagoj
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের উড়িয়ে ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ, ২০২৩

ইংল্যান্ড: ১৫৬/৬ (২০ ওভার) 

বাংলাদেশ: ১৫৮/৪ (১৮ ওভার)

আজ টস হেরে আগে ব্যাটিং করে ৬ উইকেটে ১৫৬ রান করে ইংল্যান্ড। তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশ ৬ উইকেটে জিতে মাঠ ছাড়ে। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন শান্ত। মাত্র ৩০ বলে এই রান করেন তিনি।

এ ছড়া তৌহিদ হৃদয় ২৪ ও রনি তালুকদার ২১ রান করেন। শান্ত-হৃদয়ের জুটি বাংলাদেশকে জয়ের ভিত গড়ে দেয়। মাত্র ৩৯ বলে ৬৫ রান আসে এই জুটি থেকে। এরপর সাকিব-আফিফের ব্যাটে ভর করে বাংলাদেশ জয় নিশ্চিত করে। দুজনের জুটি থেকে আসে ৩৪ বলে ৪৬ রান। সাকিব ৩৪ ও আফিফ ১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

ইংল্যান্ডের হয়ে ১টি করে উইকেট নেন উড-আর্চার-মঈন-রশিদ।

জয়ের পথে বাংলাদেশ

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জয়ের পথে বাংলাদেশ। ২৪ বলে প্রয়োজন ১৯ রান। সাকিব-আফিফ এখন ব্যাট করছেন। দুজনের জুটি থেকে আসে ২৬ রান।

ফিফটির পর শান্তর বিদায়

উডের বল বুঝতেই পারেননি দুর্দান্ত খেলতে থাকা শান্ত। ব্যাক অব লেন্থের বলে পরাস্ত হন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। সরাসরি আঘাত হানেন উইকেটে। ৮টি চারে ৩০ বলে ৫১ রান করে সাজঘরে ফেরেন শান্ত। ক্রিজে দুই নতুন ব্যাটসম্যান সাকিব-শান্ত।

মঈন আলীকে লেগ সাইডে ঠেলে দিয়ে সিঙ্গেল নেন নাজমুল হোসেন শান্ত। মাত্র ২৭ বলে পেয়ে যান ফিফটির দেখা। তার হাফ সেঞ্চুরির ইনিংসে চারের মার ছিল ৮টি। হৃদয়ের ফিফটির পরেই সাজঘরে ফেরেন তৌহিদ হৃদয়। টাইমিং গড়বড় করে মিডউইকেটে ক্যাচ তুলে দেন। বাউন্ডারি থেকে দৌড়ে এসে ক্যাচ ধরেন মঈন আলী। ১৭ বলে ২৪ রান করেন হৃদয়।

হৃদয়ের ছক্কায় ৬৩ বলে বাংলাদেশের ১০০

এক হাঁটু গেঁড়ে মিড অনে আদিল রশিদকে গ্যালারিতে আছড়ে ফেললেন তৌহিদ হৃদয়। ১০.৩ ওভারে বাংলাদেশ পেরিয়ে যায় শতরান। আরেক প্রান্তে দুর্দান্ত খেলছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। দুজনের জুটি থেকে ৩৭ বলে ৬৪ রান আসে।

পাওয়ার প্লের পর শান্ত ঝড়, হাঁকালেন টানা চারটি চার

পাওয়ার প্লেতে বাংলাদেশ ২ উইকেটে ৫৪ রান তোলে। এরপর শুরু হয় শান্ত ঝড়। মার্ক উডকে সপ্তম ওভারের প্রথম চার বলে টানা চারটি চার হাঁকান শান্ত। মিড অনে ফিল্ডারের মাথার উপর দিয়ে শুরু, শেষও করেন মিড অনে দারুণ চারে। অন্যপ্রান্তে অভিষিক্ত তৌহিদ হৃদয়ও খেলছেন সাবলীলভাবে। দুজনের জুটি থেকে ১৯ বলে ৩৯ রান আসে।

রনির পর লিটনের বিদায়

ওয়ানডে সিরিজে ব্যর্থ ছিলেন লিটন দাস। তিন ম্যাচে মাত্র সাত। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই চার মেরে দিয়েছেন বার্তা। ক্রিজে সেট হতে সময় নিচ্ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। আর্চারের বলে পুল করতে গিয়ে ধরা পড়েন ওকসের হাতে। ১০ বলে ১২ রান করেন তিনি।

দারুণ শুরুর পর রনির বিদায়

আদিল রশিদের প্রথম বল পায়ে লাগে রনির। পরের বল আর ব্যাটেই লাগাতে পারেননি। সরাসরি বোল্ড। ৮ বছর পর দলে ফেরা এই ওপেনারের ব্যাটে দারুণ শুরু করে বাংলাদেশ। ৩ ওভারে বাংলাদেশ ৩২ রান করে। তাতে রনির অবদান ২১। ১৪ বলে এই রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ক্রিজে লিটন দাসের সঙ্গী শান্ত।

ডেথ ওভারে দুর্দান্ত বোলিং, ১৫৬ রানে ইংলিশদের থামালো বাংলাদেশ

শেষ চার ওভারে মাত্র ২১ রান দিয়েছে বাংলাদেশি বোলাররা। এ সময় সফরকারীরা হারিয়েছে ৩ উইকেট। তাতে ইংল্যান্ড বড় স্কোরের পথে থেকেও কর‍তে পারেনি। ৬ উইকেট হারিয়ে তারা ১৫৬ রান করে। তিন পেসার দুর্দান্ত বোলিং করেন শেষ দিকে। তাসকিন-হাসান ২৬ রান করে দেন। হাসান সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন। তাসকিন নেন ১টি। এ ছাড়া ১টি করে উইকেট নেন সাকিব-নাসুম-মোস্তাফিজ। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৭ রান করেন বাটলার। তিনি জীবন পেয়েছিলেন ২০ রান। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৮ রান করা সল্টও জীবন পান ১৯ রানে। ২০ রান আসে ডাকেটের ব্যাট থেকে। এ ছাড়া কোনো ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের ঘরের মুখ দেখেননি।

মোস্তাফিজ-হাসানের আঘাতে পরপর আউট  ডাকেট-বাটলার

ষোলোতম ওভারের শেষ বল। মোস্তাফিজুর রহমানের নিচুতে ভেতরে ঢোকা বলে পুল করতে চেয়েছিলেন ডাকেট। বল ব্যাট ফাঁকি দিয়ে স্ট্যাম্প উপরে ফেলে। ১৩ বলে ২০ রান করেন তিনি। পরের ওভারের প্রথম বলেই হাসান ফেরান ঝড় তোলা বাটলারকে। এর আগে হাসানকে ছক্কা মেরে ফিফটি করেছিলেন বাটলার এবারও উড়িয়ে মারলেন লং অনে। কিন্তু টাইমিংয়ে গড়বড় হওয়ায় বাউন্ডারি পার হওয়ার আগে ধরা পড়ে যান শান্তর হাতে। ২০ রানে জীবন পাওয়া বাটলার আউট হন ৪২ বলে ৬৭ রান করে।

ফিফটির পর বাটলার ঝড়

২০ রানে সাকিবের হাতে মিড অনে জীবন পেয়েছিলেন। সেটি ভালোভাবে কাজে লাগিয়েছেন ইংলিশ অধিনয়ক জস বাটলার। হাসান মাহমুদকে ১৩তম ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ৩২ বলে ফিফটি করেন বাটলার। তার ফিফটির ইনিংস সাজানো ছিল তিনটি করে চার-ছক্কায়। পরের বলেও আরও একটি ছয় হাঁকান তিনি। এতে পূর্ণ হয় ইংল্যান্ডের দলীয় ১০০।  ফিফটির পর ঝড় তুলছেন বাটলার।

নাসুমের পর সাকিবের আঘাত

নিজের বলে নিজে ক্যাচ মিস করে জীবন দিয়েছিলেন ফিল সল্টকে। সেই সল্টকে দশম ওভারের শেষ বলে ফেরান নাসুমই। একই ওভারে এক ছক্কা এক চারের মারের পর সুইপ করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন নাসুম। রিভিউ নিয়েছিলেন কিন্তু কাজ হয়নি। তার ব্যাট থেকে আসে ৩৫ বলে ৩৮ রান। নাসুমের এক ওভার পরেই আঘাত হানেন সাকিব। লং অনে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মালান ধরা পড়েন শান্তর হাতে। ৭ বলে ৪ রান করেন তিনি।

নাসুমের এক ওভারেই দুই ক্যাচ মিস, ইংল্যান্ডের দুর্দান্ত শুরু

পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে নাসুম আহমেদের প্রথম বল। সল্ট সোজাসুজি নাসুমের দিকেই খেলেন। বল আঙুলে লেগে মাটিতে স্পর্শ করে। সল্ট ১৯ রানে জীবন পান। পরের বলে সিংগেল নিয়ে স্ট্রাইক দেন বাটলারকে। এক বল ডট দিয়ে বাটলার মিড অনে আকাশে তুলে দেন। কিন্তু সাকিব ধরতে পারেননি। বাটলার জীবন পান ২০ রানে। শুরু থেকেই দুজনে মেরে খেলার চেষ্টা করছেন। পাওয়ার প্লেতে তোলেন ৫১ রান।

টস

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড। টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ একাদশ

তিন  পেসার নিয়ে নেমেছে বাংলাদেশ। অভিষেক হচ্ছে তৌহিদ হৃদয়ের। আর ৮ বছর পর দলে ফেরা রনি একাদশেও জায়গা করে নিয়েছেন। প্রায় দেড় বছর পর খেলছেন শামীম পাটোয়ারী।

একদাশে যারা 
সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), রনি তালুকদার, নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটন দাশ, আফিফ হোসেন, তৌহিদ হৃদয়, শামীম হোসেন পাটোয়ারী, নাসুম আহমেদ, তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।

৮ বছর পর রনি 

জাতীয় দলের হয়ে রনি এর আগে ২০১৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে একটি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। সাত নম্বরে নেমে ২১ রান করেন। এরপর তাকে আর নেওয়া হয়নি। ৮ বছর পর তাকে আবার ফেরানো হলো জাতীয় দলে। এবার সুযোগ পেলেন একাদশে। বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের ওপেনার রনি ৩৫.৪১ গড়ে ১৩ ম্যাচে ৪২৫ রান করেন। ব্যাটিং করেছেন ১২৯.১৭ স্ট্রাইকরেটে। চার মেরেছেন ৫১টি আর ছক্কা ১২টি। ফিফটি ছিল ৩টি।

বিপিএলে দারুণ খেলা হৃদয়ের অভিষেক 

বলা চলে এবারের বিপিএলের আবিস্কার ডানহাতি ব্যাটসম্যান তৌহিদ হৃদয়। যুব বিশ্বকাপ জয়ী এ ক্রিকেটার ১৪০.৪১ স্ট্রাইকরেটে ১৩ ম্যাচে ৪০৩ রান করেন। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় ছিলেন তৃতীয় স্থানে। শুরুতে ইনজুরিতে আক্রান্ত না হলে হৃদয় থাকতে পারতেন শীর্ষে। ফিফটি পেয়েছেন ৫ ম্যাচে। সর্বোচ্চ ৮৫ রানে ছিলেন অপরাজিত। চার মেরেছেন ৪৩টি আর ছয় ১৩টি। এবার তার জাতীয় দলের জার্সিতে রাঙানোর পালা।

চোখ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে 

২০২৪ বিশ্বকাপে চোখ রেখে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নেমছে বাংলাদেশ। প্রধান কোচ  হাথুরুসিংহে সংবাদ সম্মেলনে শোনালেন টি-টোয়েন্টির যাত্রার গল্প, ‘আমি এই দলকে আজ দেখেছি। এটা ২০২৪ বিশ্বকাপের যাত্রা শুরু হলো মাত্র। এক সুত্রে গাঁথার জন্য অনেক কাজ করতে হবে। আমাদের কি আছে, কোথায় উন্নতি করতে হবে এবং কি পরিকল্পনায় এগোতে হবে সব বের করতে হবে। এটা মাত্র শুরু।’

টি-টোয়েন্টিতে জয়ের পালা

টেস্টে জয় এসেছে, ওয়ানডেতে এসেছে, রইলো বাকি টি-টোয়েন্টি। এবার ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে প্রথম জয়ের স্বাদ পাওয়ার পালা। অবশ্য এর আগে টি-টোয়েন্টিতে মাত্র একবারই মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড। এর আগে ১০ টেস্ট খেলে ১ জয় আর ১৯ ওয়ানডে খেলে ৫টি জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

প্রথম দেখায় বাংলাদেশের বড় হার

প্রথম দেখার মুহূর্ত অবশ্য ভুলে যেতে চাইবে বাংলাদেশ। ২০২১ বিশ্বকাপের সেই দেখায় উড়ে গিয়েছিল লাল  সবুজের দল। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ আগে ব্যাট করে মাত্র ১২৪ রান করে। লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৩৫ বল হাতে রেখে মাত্র দুই উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড।

চ্যালেঞ্জ নিতে মুখিয়ে ইংল্যান্ড 

এদিকে চ্যালেঞ্জ নিতে মুখিয়ে ইংল্যান্ড। যেমনটা বলেছেন ক্রিস ওকস, ‘হ্যা, আসলেই রোমাঞ্চিত আমরা। আমরা যে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন সেটার ছাপ রেখে যাওয়ার একটা বড় সুযোগ এই সিরিজ। বিশ্বকাপ জয়ের পর থেকে আমরা আর কোনো সিরিজ খেলিনি। তাই আবারও, এই কন্ডিশনে আমাদের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ। এখানে বাংলাদেশের মতো ভালো দলের বিপক্ষে খেলাটা রোমাঞ্চকর।’

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!