1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
সোমবার, ১০ অগাস্ট ২০২০, ১২:১৫ অপরাহ্ন

শ্রীবরদীতে ল্যান্ডফোন সংযোগ থাকলেও সেবা নেই: বিল গুনতে হচ্ছে প্রতিমাসে

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০২০
  • ৪২ বার পড়া হয়েছে

শ্রীবরদী (শেরপুর) : সরকারি অফিস ও বাসাবাড়িতে রয়েছে নামমাত্র ল্যান্ডফোন সংযোগ। সংযোগ থাকলেও সেবা না পেয়ে বঞ্চিত গ্রাহকরা। কিন্তু প্রতি মাসেই গুনতে হচ্ছে টেলিফোন বিল। বছরের পর বছর সেবা না পেয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ল্যান্ডফোন ব্যবহারকারীরা। শেরপুরের শ্রীবরদীতে সরকারি ল্যান্ডফোন সেবা প্রদানকারী এ সংস্থাটির অবকাঠামো ভেঙ্গে পড়েছে।
জানা যায়, প্রায় এক বছর আগে সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন শ্রীবরদী-লঙ্গরপাড়া-শেরপুর সড়কের উন্নয়ন কাজ চলার সময় টিএন্ডটি অফিসের আশেপাশের ল্যান্ডফোনের অধিকাংশ আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবল কেটে যায়। এরপর থেকে ল্যান্ডফোনের সার্ভার রুমের সাথে উপজেলার অফিস, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়ির সকল সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট অফিসের কর্মকর্তাদের নজরে এলে তারা বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেন। কিন্তু প্রায় এক বছর অতিবাহিত হলেও ল্যান্ডফোনের সংযোগ সচল করতে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। এতে করে চরম ভোগান্তিতে পরে গ্রাহকরা। কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও হঠাৎ গত জুন/২০২০ইং মাসে প্রায় এক বছরের বিল পরিশোধের নোটিশ পাঠায় গ্রাহকদের কাছে। বিল হাতে পেয়ে সেবা বঞ্চিত গ্রাহকদের মাঝে চরম অসন্তোষ দেখা দেয়। একসময় শ্রীবরদী উপজেলায় প্রায় ৫ শতাধিক সংযোগ থাকলেও সেবা না পেয়ে বর্তমানে মাত্র ৫০-৬০টি সংযোগ রয়েছে। কিন্তু সেগুলোও সচল নেই। অফিসটি জরাজীর্ণভাবে পরে রয়েছে। সাব-এ্যাসিস্টেন্ট ইঞ্জিনিয়ার, লাইনম্যান সংশ্লিষ্ট অফিসের দায়িত্বে থাকলেও কেউ অফিসে আসেন না। একজন নাইটগার্ড রয়েছেন, তিনিই দেখাশোনা করেন।
অফিস সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীর অভিযোগ, অফিস ঠিকমতো খোলা হয় না বিধায় দিন-রাতের অধিকাংশ সময় বখাটেরা আড্ডা দেয়। রাতের বেলায় বেড়ে যায় মাদকসেবীদের আনোগোনা।
উত্তর বাজারের ব্যবসায়ী মাসুদুর রহমান বলেন, বেশিরভাগ সময় ল্যান্ডফোনের সংযোগটি বিচ্ছিন্ন থাকে। অফিসে গেলেও কাউাকে পাওয়া যায় না। কিন্তু বিল দিতে হয় প্রতি মাসেই। তাই সেবা না পেয়ে সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছি।
উপজেলা পরিষদের সেবাগ্রহিতা উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মোশারফ হোসেন বলেন, আমাদের অফিসে ল্যান্ডফোন রয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবত কোন প্রকার সেবা পাচ্ছি না।
শ্রীবরদী টিএন্ডটি অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাব-এসিস্টটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার আরিফুল হক বলেন, রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ করার সময় অফিসের আশপাশের বেশকিছু আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবল কেটে গেছে। বিষয়টি উধর্বতন কর্তৃপক্ষকে অফিসিয়ালভাবে অবগত করা হয়েছে। ক্যাবল পেলেই সংযোগগুলো সচল করা হবে।
বিটিসিএল শেরপুরের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা সহকারী ব্যবস্থাপক টেলিকম আব্দুল মান্নান বলেন, রাস্তার উন্নয়ন কাজের সময় আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবল কাটা পড়ায় সংযোগগুলো বিচ্ছিন্ন রয়েছে। উধ্বর্তন কর্তপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। প্রতি মাসেই গ্রাহকদের নিকট থেকে বিল পরিশোধের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু সংযোগগুলো গ্রাহক বিচ্ছিন্ন করেনি, তাই সর্বনি¤œ বিল করা হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিলুফা আক্তার বলেন, শ্রীবরদীতে যোগদানের পর থেকেই ল্যান্ডফোনের সংযোগটি বিচ্ছিন্ন অবস্থায় পেয়েছি। পরে বিষয়টি টিএন্ডটি অফিসের কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। কিন্তু প্রায় ৮ মাস অতিবাহিত হলেও সংযোগটি সচল হয়নি। তিনি আরো বলেন, তাদের সাথে কথা বলে জানতে পেরেছি যে, রাস্তা সম্প্রসারণের কাজের সময় আন্ডারগ্রাউন্ডের ক্যাবল কেটে গেছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com