1. nirjoncomputer@gmail.com : Alamgir Jony : Alamgir Jony
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৬ অগাস্ট ২০২০, ০৮:০৬ অপরাহ্ন

ঝিনাইগাতীতে অর্থাভাবে এসএসসি পরীক্ষার্থী মনিরের চিকিৎসা ব্যাহত

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ১০ জুন, ২০২০
  • ৯২ বার পড়া হয়েছে

মোহাম্মদ দুদু মল্লিক, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) : শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে অর্থাভাবে আটকে গেছে এসএসসি পরীক্ষার্থী মনিরের চিকিৎসা। ফলে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তার দরিদ্র বাবা-মা। মনির ঝিনাইগাতী উপজেলার ফাকরাবাদ একতা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র ও নলকুড়া ইউনিয়নের সন্ধ্যাকুড়া গ্রামের দিনমজুর আব্দুল করিমের ২য় ছেলে।
পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ৪-৫ মাস যাবত মনিরের বাম পায়ের উড়ো থেকে হাঁটু পর্যন্ত পায়ের মোটা শিরাটি শক্ত হয়ে গেছে। ফলে সে চলাফেরা করতে পারে না। এছাড়াও তার বুক থেকে ঘারের পেছন পর্যন্ত প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করে। এ কারণে সে বসে থাকতে পারে না, শুধু বিছানায় শোয়ে থাকতে হয়। অর্থাভাবে অসুস্থ মনিরের চিকিৎসাও করাতে পারছেন না তার বাবা-মা।
মনিরের হতভাগা বাবা আব্দুল করিম পাহাড় থেকে লাকড়ি সংগ্রহ করে বাজারে বিক্রি করে স্ত্রী-সন্তান আর বৃদ্ধা মাসহ ৬ জনের সংসারের হাল ধরে চলছেন। এরই মধ্যে গত ৫ মাস যাবত ছেলে মনির অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে রয়েছে। ফলে ছেলের চিকিৎসার ব্যয়ভার নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় পড়েছেন তিনি।
অসুস্থ মনিরের মা বলেন, স্বামী দিনমজুরি করে যা উপার্জন করে তা দিয়ে সন্তানদের পড়ালেখার খরচসহ খাদ্যের জোগান দেওয়াই কষ্টকর। তাই ছেলেকে বাঁচাতে তার পরিবারের পক্ষ থেকে বিত্তবানদের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন তিনি। এদিকে বিষয়টি জেনে বাংলার কাগজ এর ঝিনাইগাতির সিনিয়র প্রতিবেদক দুদু মল্লিক শহরের মাজেদা ক্লিনিকে নিয়ে আসেন অসুস্থ মনিরকে। প্রাথমিক কিছু ওষুধপত্রও কিনে দেন তিনি।
ঝিনাইগাতি মাজেদা ক্লিনিকের চিকিৎসক মফিদুল ইসলাম মনিরের প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, এখানে তার চিকিৎসা হবে না। ময়মনসিংহে দুইটি টেস্ট করাতে হবে যা ব্যায় বহুল।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com