1. monirsherpur1981@gmail.com : banglar kagoj : banglar kagoj
  2. admin@banglarkagoj.net : admin :
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন

সমালোচনামূলক পোস্ট: সৌদি আরবে শিক্ষকের ২০ বছরের কারাদণ্ড

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ১০ জুলাই, ২০২৪
আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনামূলক পোস্ট করায় সৌদি আরবে এক শিক্ষককে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ও দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তির ভাইয়ের বরাত দিয়ে এএফপি মঙ্গলবার এ খবর জানিয়েছে।

এইচআরডাব্লিউর তথ্যমতে, ২০২২ সালের নভেম্বরে সৌদি শহর জেদ্দায় বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আসাদ আল-গামদিকে (৪৭) গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। সন্ত্রাসের অভিযোগে অভিযুক্ত সন্দেহভাজনদের বিচারের জন্য ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত সৌদি আরবের বিশেষ ফৌজদারি আদালত তাকে গত ২৯ মে দোষী সাব্যস্ত করেন।

নিউ ইয়র্কভিত্তিক অধিকার গোষ্ঠীটি বলেছে, আসাদকে ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ কার্যকলাপের সঙ্গে সম্পর্কিত অভিযোগে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে’।

এইচআরডাব্লিউ আদালতের নথিগুলো পর্যালোচনা করে দেখেছে, আসাদের বিরুদ্ধে সৌদি ‘বাদশাহ ও যুবরাজ্যের ধর্ম ও ন্যায়বিচারকে চ্যালেঞ্জ’ এবং ‘মিথ্যা ও বিদ্বেষপূর্ণ সংবাদ ও গুজব প্রকাশ করার’ অভিযোগ আনা হয়েছিল। তবে গোষ্ঠীটির মতে, এসব অভিযোগের পক্ষে প্রমাণ হিসেবে ব্যবহৃত পোস্টগুলোতে দেশটির ভিশন-২০৩০ সংস্কার এজেন্ডা সম্পর্কিত প্রকল্পগুলোর সমালোচনা করা হয়েছে।

এর আগে আসাদের ভাই মোহাম্মদও একই ধরনের অভিযোগের মুখোমুখি হয়েছেন। তিনি সরকারের একজন সমালোচক ছিলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কথিত দুর্নীতি ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের নিন্দা জানিয়েছিলেন তিনি। তার এসব কার্যকলাপের ভিত্তিতে গত বছর তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

আসাদ ও মোহাম্মদের আরেক ভাই সাঈদ সৌদি কর্তৃপক্ষের সর্বশেষ এ পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি একজন ইসলামিক পণ্ডিত ও সৌদি সরকারের সমালোচক। তিনি বর্তমানে যুক্তরাজ্যে নির্বাসনে আছেন। আসাদের বিরুদ্ধে রায়ের বিষয়ে মন্তব্য করে তিনি এএফপিকে বলেন, ‘অভিযোগগুলো স্বেচ্ছাচারী ও অন্যায্য। কারণ এগুলো সবই টুইটের ওপর ভিত্তি করে। হয়তো আমিও টার্গেট।’
অধিকার গোষ্ঠীগুলোর মতে, গত দুই বছরে সৌদি বিচার বিভাগ বেশ কয়েকজন ব্যক্তিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের পোস্টের জন্য দোষী সাব্যস্ত করেছে এবং দীর্ঘ কারাদণ্ড দিয়েছে। তাদের মধ্যে রয়েছে নুরাহ আল-কাহতানি, যাকে ২০২২ সালে ৪৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। মূলত সরকারের সমালোচনা করে পোস্ট দেওয়ার কারণে তাকে এ সাজা দেওয়া হয়। এ ছাড়া সালমা আল-শেহাব ২০২২ সালে টুইটারে ‘জনশৃঙ্খলা ব্যাহত করতে’ অসন্তুষ্টদের সহায়তার দায়ে ৩৪ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2011-2020 BanglarKagoj.Net
Theme Developed By ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!